২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম:
নাগেশ্বরী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগ সিএনজি-ট্রাক এর মুখোমুখি সংঘর্ষ,নিহত এক যুবক। কিশোরগঞ্জে ঐতিহ্য ধরে রাখতে পালকি উৎসব উখিয়া র‍্যাবের অভিযানে ১০ কোটি টাকার আইস উদ্ধার,আটক ১ নাগেশ্বরী উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রাথীর পক্ষে সরকারী কর্মচারীর গণসংযোগ পটুয়াখালী কলাপাড়ায় ঘূর্ণিঝড় রেমাল সতর্কতায় কোস্টগার্ডের মাইকিং। সুনামগঞ্জের পরিবেশক সমিতির ৩য় বার্ষিক সাধারন সভায় ১১ সদস্য বিশিষ্ঠ নতুন কমিটি গঠন ঘূর্ণিঝড় রেমাল সতর্কতায় কোস্টগার্ডের মাইকিং প্রায় ৪০ টি গ্রামের মানুষের যোগাযোগের ব্যবস্থা করে দিলেন এম পি এ্যাড.বিপ্লব হাসান পলাশ। ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্কসংকেত প্রচার করছে পাথরঘাটা কোস্টগার্ড
আন্তর্জাতিক:
আদিবা আজম মাটি বেসিস-বিইউবিটি লিডার অব দ্য ইয়ার নির্বাচিত ইতিহাসে চিরঞ্জীব “প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি” ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে আইআইইউসি আইন বিভাগের ৩৫ তম ব্যাচ ফিমেল শাখার বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত। মহামান্য রাষ্ট্রপতির সাথে আইআইইউসি প্রতিনিধি দলের সৌজন্য সাক্ষাৎ।  আইআইইউসি তে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ এন্ড লিটারেচার সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত দেয়ালিকার উন্মোচন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত ইউক্রেনের ১শ’টিরও বেশি ড্রোন প্রতিরোধের দাবী রাশিয়ার রাশিয়ায় অস্ত্র রপ্তানির কথা অস্বীকার করেছে উ. কোরিয়া হামলা জোরদার করতে পারে রাশিয়া: জেলেনস্কি আইআইইউসি এইচ আর ক্লাবের আয়োজনে প্রফেশনাল রিজিউমি রাইটিং এন্ড ইন্টারভিউ স্কিল কর্মশালা সম্পন্ন
  • প্রচ্ছদ
  • এক্সক্লুসিভ >> চিত্র বিচিত্র >> দেশজুড়ে >> ব্যবসা ও বানিজ্য >> রংপুর >> সোস্যাল মিডিয়া
  • চা শিল্প ধ্বংসের পাঁয়তারা করছে সেন্ডিকেট কারিরা
  • চা শিল্প ধ্বংসের পাঁয়তারা করছে সেন্ডিকেট কারিরা

      বাংলাদেশ সংবাদ প্রতিদিন

    পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধিমোঃ শেখ ফরিদ>>>

    ২০০০ সালে পঞ্চগড় জেলার চা শিল্পের আবির্ভাব হয়েছে। চা শিল্প আসায় মানুষ যেমন আশার আলো দেখেছিল, বেশ কিছুদিন তেমনি ছিল। ভালোই কাটছিল কৃষক শ্রমিকের দিন। ২০২০ সালে এসে চা শিল্প প্রায় সিন্ডিকেট কারীদের খপ্পরে পড়ে ধ্বংসের পথে। প্রতি কেজি চা পাতা সরকারিভাবে মূল্য নির্ধারণ করা হয় ২০ টাকা । সরকারি মূল্যের কোন প্রকার তোয়াক্কা না করেই সিন্ডিকেট কারীরা সকলে একত্রিত হয়ে তাদের ইচ্ছামত মূল্য নির্ধারণ করে ক্রয় করছেন চা পাতা। এতে দিন দিন কৃষকরা ক্ষতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। বর্তমানে প্রতি কেজি চা পাতা ১৩ থেকে ১৭ টাকা মূল্যে ক্রয় করে থাকেন ফ্যাক্টরি মালিকরা। এর মধ্যেও রয়েছে শতকরা ১০০ কেজি পাতা হতে কোন কোন সময় ওরা ৬০ থেকে ৭০% পাতা কর্তন করে রাখেন কৃষকের হাতে বুঝিয়ে দেওয়া হয় মাত্র 30% পাতার মূল্য। সেই ৩০% পাতার মূল্য হতে তাদের শ্রমিকদেরকে প্রতি কেজি পাতা কাটানো বাবদ দেওয়া হয় তিন টাকা পঞ্চাশ পয়সা।কৃষকের কাছে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায় কেন এই পাতার মূল্য এত কম।তারা জানান ফ্যাক্টরি মালিকরা তাদের ফ্যাক্টরিতে ভালো মানের যে চা পাতি হয় তা সরকারি ভেট ফাঁকি দিয়ে চোরা চালানকারীদের হাতে রাতের আধারে বিক্রি করে দেয়।বাকি যে অবশিষ্ট চা পাতি থাকে সেই পাতি পাঠানো হয় অকশন বাজারে অকশন বাজারে ওই চাপাতির মূল্য কম হওয়ার কারণে তারা কৃষকদের সাথে চা পাতার মূল্য নিয়ে এরকম আচরণ করে।সর্বোপরি বলা যেতে পারে সিন্ডিকেট কারীরা চা চাষীদের তাদের সিন্ডিকেটের আওতায় রাখতে চান সব সময় এই সিন্ডিকেটের কারণে তেতুলিয়া থানার বেশ কিছু কিছু জায়গায় চা বাগান তুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অনেকেই।আবার অনেকেই অল্প অল্প বাগান তুলেই ফেলেছেন বলে জানা যায়।চা চাষীদের চাওয়া তারা কি কোনদিনও সিন্ডিকেট কারীদের হাত থেকে রেহাই পাবে না কি।

    মন্তব্য

    <img class=”alignnone size-full wp-image-29676″ src=”https://bdsangbadpratidin.com/wp-content/uploads/2024/05/IMG_20240503_224849-2.jpg” alt=”” width=”100%” height=”auto” />

    আরও পড়ুন

    You cannot copy content of this page